Daily Natun Sangbad
Bongosoft Ltd.
ঢাকা রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১

তৃণমূল বিএনপিতে যারা যোগ দিলেন

দৈনিক নতুন সংবাদ নভেম্বর ৮, ২০২৩, ০৬:৩০ পিএম তৃণমূল বিএনপিতে যারা যোগ দিলেন

নতুন নিবন্ধন পাওয়া তৃণমূল বিএনপি নতুন নেতা-কর্মীদের যোগদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বুধবার (৮ নভেম্বর)। জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিএনপি, আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দলের অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী তৃণমূল বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন।  যোগ দেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে কিছু নামসর্বস্ব ভুঁইফোর দলের নেতাও রয়েছেন। বিএনপিসহ অন্য কোনো দলের কেন্দ্রীয়, পদধারী, সুপরিচিত বা গুরুত্বপূর্ণ কোনো নেতা নতুন এ দলে যোগদান করেননি।

বেলা সাড়ে ১১টায় যোগদান অনুষ্ঠান শুরু হয়। দলে নতুন যোগ দেওয়া নেতা-কর্মীদের রজনীগন্ধা দিয়ে বরণ করে নেন তৃণমূল বিএনপির চেয়ারপারসন সমশের মবিন চৌধুরী ও মহাসচিব তৈমুর আলম খন্দকার।

শুরুতে সাবেক জেলা ও দায়রা জজ সিরাজুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির চেয়ারপারসনের সাবেক উপদেষ্টা কর্নেল (অব.) সাব্বির আহমেদ, টাঙ্গাইল-৫ আসনের বাসিন্দা শরিফুজ্জামান খান ও সাভার থেকে আসা আইনজীবী মাহবুব হাসান তৃণমূল বিএনপিতে যোগদান করেন।এরপর বিভিন্ন সংসদীয় আসনের বাসিন্দা ও বিভিন্ন দলের কর্মী পরিচয় দেওয়া ব্যক্তিরা তৃণমূল বিএনপিতে যোগ দেন। টাঙ্গাইল-৪ আসনের বাসিন্দা শহীদুল ইসলাম দলে যোগ দিয়ে বলেন, ‘আমি শিক্ষকতা পেশায় ছিলাম। কারও প্ররোচনায় নয়, নিজের ইচ্ছায় এই দলে যোগ দিয়েছি।’

কুমিল্লা-২ আসনের বাসিন্দা মাঈনুদ্দীন নিজেকে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন পার্টির মহাসচিব বলে পরিচয় দেন। বাগেরহাট-৪ আসনের আবুল বাশার চৌধুরী বাংলাদেশ দেশপ্রেমিক পার্টির মহাসচিব বলে পরিচয় দেন।

নেত্রকোনা-২ আসনের মোহাম্মদ আলী ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক, চট্টগ্রাম-৮ আসনের সন্তোষ শর্মা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, ফেনী-৩ আসনের খায়েজ আহমেদ ভূঁইয়া বিএনপির, আইভি সরকার জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং লস্কর হারুনুর রশীদ এলডিপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বলে অনুষ্ঠানে জানান।

কর্মী যোগদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দলটির চেয়ারপারসন সমশের মবিন চৌধুরী বলেন, ‘গত ১৯ সেপ্টেম্বর দলের জাতীয় কাউন্সিল হয়, আজ ৮ নভেম্বর অসংখ্য নেতা–কর্মী তৃণমূল বিএনপিতে যোগদান করেছেন। তৃণমূল বিএনপি নির্বাচনমুখী দল। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেব। আমরা আশা করি, নির্বাচন কমিশন তার ক্ষমতা অক্ষরে অক্ষরে প্রয়োগ করে একটি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করবে।’

নেতা-কর্মীদের নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে সমশের মবিন চৌধুরী বলেন, ‘তৃণমূল বিএনপি ৩০০ সংসদীয় আসনের প্রতিটিতে প্রার্থী দেবে। জ্বালাও-পোড়াও হত্যার রাজনীতিতে আমরা বিশ্বাস করি না। সেটা লগি-বৈঠা দিয়ে হত্যা হোক কিংবা পেট্রল বোমা দিয়ে হত্যা হোক।’

তৃণমূল বিএনপি কোনো প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি হবে না জানিয়ে দলের মহাসচিব তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, এটি হবে জনগণের দল। দলের প্রত্যেক সদস্য হবেন এই দলের নেতা। তৃণমূল বিএনপির কেন্দ্র যাবে তৃণমূলের কাছে। তৃণমূল বিএনপি হবে বাংলাদেশের তৃণমূল কংগ্রেস।

তৃণমূল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা নাজমুল হুদা। তিনি ১৯৯১ ও ২০০১ সালে দুই দফায় খালেদা জিয়া সরকারের মন্ত্রী ছিলেন। উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ফেব্রুয়ারিতে তৃণমূল বিএনপিকে নিবন্ধন দেয় ইসি। ১৯ সেপ্টেম্বর দলের প্রথম সম্মেলন ও কাউন্সিলে আংশিক কমিটি নির্বাচন করা হয়।

যোগদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তৃণমূল বিএনপির কো-চেয়ারপারসন কে এ জাহাঙ্গীর মাজমাদার। আরও উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আনাস আলী খান, সিনিয়র ভাইস চেয়ারপারসন মেজর (অব.) শেখ হাবিবুর রহমান প্রমুখ। ###

Side banner